বিদেশী বিনিয়োগের বিষয়ে আগ্রহী এবার বাংলাদেশও

বাংলাদেশ

রোহন দে:- সারা বিশ্বে কোভিড 19 মহামারির কারণে একদিকে যেমন জীবন-জীবিকায় বিভিন্ন জটিলতা বাড়িয়েছে, অন্যদিকে বিভিন্ন সম্ভাবনারও ইঙ্গিত দিয়েছে। এর প্রভাবে সারা বিশ্বের বাণিজ্যিক এবং অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে বিভিন্ন পরিবর্তন সংঘটিত হচ্ছে।

করোনার উৎপত্তিস্থল চীন ছাড়তে ইচ্ছুক অনেক ব্যবসায়িক উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান। তারা এখন বিকল্প হিসেবে বিভিন্ন দেশ খুঁজছে। অর্থাৎ তিন দশক ধরে ‘উৎপাদনকেন্দ্র’ হিসেবে বিশেষ খ্যাতি লাভ করা চীন থেকে বিনিয়োগ অন্য দেশে স্থানান্তরের প্রভূত সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে। এমন সুযোগ হাতছাড়াও করতে রাজি নয় কোনও দেশ।

চীন থেকে মুখ ফেরানো এই বিদেশী বিনিয়োগ নিজেদের দেশে টানতে ইতোমধ্যেই মাঠে নেমে পড়েছে ভারত, ভিয়েতনাম, ইন্দোনেশিয়া, বাংলাদেশসহ অনেক দেশ। তবে বিনিয়োগের জন্য উপযুক্ত পরিবেশ তৈরিতে প্রতিযোগী দেশগুলো থেকে বেশ কয়েক যোজন পিছিয়ে রয়েছে বাংলাদেশ। তবে হাল ছাড়তে রাজি নয় বাংলাদেশ সরকার।

বাংলাদেশ অর্থমন্ত্রক বিদেশী বিনিয়োগ আনার ব্যাপারে যথেষ্ট গুরুত্ব সহকারে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে পরিকল্পনা নেওয়া শুরু করেছে। বিনিয়োগের অর্থ-লভ্যাংশ নিজ দেশে সহজে প্রত্যাবর্তন তথা নিজ দেশ বা অন্য কোনো দেশে নিয়ে যাওয়ার ব্যবস্থার বিষয়টি নিশ্চিত করা বিনিয়োগবান্ধব পরিবেশ সৃষ্টির অন্যতম শর্ত। তাই বিদেশি বিনিয়োগকারীরা সংস্থাগুলি যাতে অনায়াসে বিনিয়োগের অর্থ-লভ্যাংশ নিজ দেশ বা অন্য দেশে নিয়ে যেতে পারেন, সেই বিষয়ে সংশ্লিষ্ট সব সংস্থা কর্তৃক জরুরী ভিত্তিতে পদক্ষেপ গ্রহণ প্রয়োজন। এক্ষেত্রে ব্যাংকিং সেক্টরের বিভিন্ন নিয়মনীতি সহজ করা এবং তা বাস্তবে ব্যাবসায়িক ক্ষেত্রে প্রয়োগ অত্যাবশ্যক। ইতিমধ্যেই এই বিষয়গুলি বাস্তবায়িত করার কাজ শুরু হয়েছে।