‘বিছানায় যাইনি বলেই পায়নি মুখ্যচরিত্র’ ক্ষোভ উগরে দিলেন শ্রীলেখা

বিনোদন

রিমি রায়ঃ সুশান্ত সিং রাজপুত-এর মৃত্যুর পর থেকে উত্তাল হয়েছে গোটা দেশ। ইন্ডাস্ট্রি থেকে শুরু করে প্রতিটি সেক্টরে ‘নেপোটিজম’ নিয়ে ঝড় উঠেছে সামাজিক মাধ্যমে। এরপর থেকেই একের পর এক তাবড় তাবড় তারকারা মুখ খুলছেন ‘নেপোটিজম’ নিয়ে। আর এই তালিকা থেকে বাদ যায়নি টলিউডের অন্যতম তারকা শ্রীলেখা মিত্রও। নায়িকা নিজের ইউটিউব চ্যানেলের লাইভে টলি ইন্ডাস্ট্রি নিয়ে উগরে দিলেন ক্ষোভ। প্রায় একঘন্টা নয় মিনিটের এই ভিডিয়োতে ‘নেপোটিজম’ নিয়ে কথা বলতে গিয়ে প্রসেনজিত চট্টোপাধ্যায়, ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত থেকে শুরু করে বাদ যায়নি সৃজিত, শিবপ্রসাদ, কৌশিক, কমলেশ্বরের মতো বেশ কিছু নামও।
সুশান্ত সিং রাজপুত-এর মৃত্যুর খবর অনেকের মতোই নায়িকা শ্রীলেখা মিত্র-কেও নাড়িয়ে দিয়েছিল। আর তার জন্যই বৃহস্পতিবার নিজের ইউটিউব চ্যানেল থেকে লাইভে এসে অবসাদ প্রসঙ্গে কথা বলেন নায়িকা আর সেই প্রসঙ্গেই উঠে আসে তাঁর নিজের পেশাগত জীবনের বেশ কিছু ঘটনা। আর তাতেই উঠে এলো স্বজনপোষন। শ্রীলেখা বলেন, “মানসিক অবসাদ আছে, থাকবে। এটা নিয়ে আমি বহু বছর ধরে লড়াই করছি এবং করব। আমি আত্মহত্যাপ্রবণ নই। কিন্তু একটা সময় ছিলাম।” অভিনেত্রী জানিয়েছেন, একটা সময় ব্যক্তিগত ও পেশাগত দিক থেকে একাকীত্ব ঘিরে ধরেছিল তাঁকেও। তখন অনেকবার নিজেকে শেষ করার কথাও ভেবেছেন তিনি। তবে যতই কঠিন পরিস্থিতি আসুক না কেন, কখনই তিনি আপোষ করেন নি এও জানান তিনি।
কেরিয়ারের গোড়ার দিকের কথা থেকেই বলা শুরু করেন ‘আশ্চর্য প্রদীপ’-এর নায়িকা। তাঁর কথায়, “তখন ইন্ডাস্ট্রিতে বুম্বাদা (প্রসেনজিৎ), দীপকদা (চিরঞ্জিত), তাপসদা (তাপস পাল) এবং বাইরে থেকে মাঝে মাঝে রণিত রায়ের মতো নায়করা আসতেন। কিন্তু বুম্বাদা এক নম্বরে। তখন বুম্বাদা’র বোনের চরিত্র করেছি, সেকেন্ড লিড করেছি। তবে আমি জানতাম, আমার নায়িকা হওয়ার যোগ্যতা আছে কিন্তু পারি নি। কারণ তখন ঋতুপর্ণার সঙ্গে প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়ের প্রেম।”

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *