মমতার রাজ্যে নিরাপদ নয় শিখরা, তীব্র ভর্ৎসনা করলেন পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী

খবর রাজনীতি-সামাজিক

সুরজিৎ আঁকুড়ে: শিখ দেহরক্ষীর পাগড়ি খুলে দেওয়ার প্রতিবাদে সরব হলেন পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী ক্যাপ্টেন অমরিন্দর সিংহ।
গত বৃহস্পতিবার ছিল বিজেপির নবান্ন অভিযান। সেখানে সামিল হয়েছিলেন বিজেপির বিভিন্ন স্তরের নেতা নেত্রী থেকে শুরু করে সদস্যরাও। বিজেপির এই অভিযানের ফলে বিভিন্ন জায়গায় পুলিশ কর্মীদের সঙ্গে বিজেপি সদস্যদের ঝামেলা বেঁধে যায়। আর এর পরই জানা গিয়েছে, একটি জায়গায় এক শিখ যুবককে পুলিশ আটক করে, পুলিশের সঙ্গে টানাহ্যাঁচড়ায় তাঁর পাগড়ি খুলে যায়। আর স্যোশাল মিডিয়ায় ওই ঘটনা মুহুর্তের মধ্যে ভাইরাল হতেই চারিদিকে শোরগোল পড়ে যায়। এর পাশাপাশি ধর্মীয় ভাবাবেগকে আঘাত হানার প্রতিবাদে সরব হন সমাজের বিভিন্ন শ্রেণীর মানুষ। শিখ যুবকের পাগড়ি খোলার প্রতিবাদে মুখ খোলেন প্রাক্তন ক্রিকেটার হরভজন সিংও। সূত্রের খবর, ওই শিখ যুবক বলবিন্দর সিং বিজেপি যুবমোর্চার রাজ্য কমিটির সদস্য তথা ব্যারাকপুরের বাসিন্দা প্রিয়াঙ্গু পাণ্ডের দেহরক্ষী। এর পাশাপাশি তার কাছ থেকে একটি নাইন এমএম পিস্তলও উদ্ধার করে পুলিশ। এই ঘটনার চরম প্রতিবাদ করেন পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী ক্যাপ্টেন অমরিন্দর সিং। তাঁর পক্ষ থেকে সংবাদমাধ্যম উপদেষ্টা রবীন ঠাকরাল এক ট্যুইট বার্তায় লেখেন, ‘এই কাজটা একদমই ঠিক হয়নি। পশ্চিমবাংলার পুলিশ গ্রেপ্তার করতে গিয়ে এক শিখ যুবকের পাগড়ি খুলে নিচ্ছে, তাঁকে হেনস্থা করছে।এমনকি ধর্মীয় ভাবাবেগকে আঘাত করার কারণে তিনি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়ের কাছে আর্জি জানিয়েছেন, ওই পুলিশকর্মীর বিরুদ্ধে যেন কড়া পদক্ষেপ নেওয়া হয়’।