ঘোর বিপদ! পুড়ে গেল পুরীর মন্দিরের পতাকা

খবর রাজনীতি-সামাজিক

ঘনিয়ে আসছে ভয়ঙ্কর বিপদ, এভাবেই এই ঘটনাকে ব্যখ্যা করছেন পুরী মন্দিরের সেবায়েতরা৷ তারা বলছেন পুরীর ইতিহাসে এই প্রথম মন্দিরে থাকা চূড়ার পতাকা এভাবে জ্বলেছে৷


এমন আগুন অশুভ কিছুরই বার্তা বহন করছেন বলে মত ধর্মপ্রাণদের৷ করোনার আতঙ্কের মধ্যেই এই বার্তা মোটেই ভাল নয়, মানছেন অনেকে৷
বুধবার ছিল বড় একাদশী৷ এদিনেই মঘদীপ জ্বালানোর রীতি রয়েছে৷ যা মন্দিরের চূড়ায় রাখা হয়৷ বিশেষ কিছু অনুষ্ঠানেই এই প্রদীপ জ্বলে মন্দিরের ওপরে৷ সেই প্রদীপ থেকেই আগুন ছড়িয়ে পড়ে বলে দেখা যায়৷ অত উঁচুতে উঠে আগুন তখন নেভানো সম্ভব হয়নি৷


রাত ৮.২০নাগাদ এই ঘটনা ঘটে৷ আকাশ তখন বেশ মেঘলা ছিল৷ জোরে হাওয়া দিচ্ছিল৷ হঠাৎ করে সেই হওয়া থেকে পতাকায় আগুন ধরে যায়৷ মন্দিরের পবিত্র পতাকাকে বানা বলা হয়৷


লোহার রডের সঙ্গে জুড়ে থাকা এই বানা সম্পূর্ণ পুড়ে যায়৷ নীল চক্রের কাছে এই রাখা ছিল প্রদীপটি৷ এই চক্রটি অষ্টধাতু দিয়ে তৈরি৷ যদিও জানা গিয়েছে যে সবথেকে উঁচুতে যেই পতাকা থাকে তা সুরক্ষিত রয়েছে৷

এক সেবায়েত বলছেন যে এই ধরণের দুর্ঘটনা খুবই খারাপ ইঙ্গিত দিচ্ছে৷ এমন ধরণের একটি ঘটনা সাইক্লোন ফণি সময় ঘটেছিল৷ তাতে প্রচুর ক্ষতি হয় পুরী এবং আশেপাশের এলাকায়৷


এবার এই মহামারীর সময়ও এমনভাবে পবিত্র পতাকায় আগুন লাগায় কু-সংবাদের ইঙ্গিত দিচ্ছে বলে তিনি মনে করেন৷ তবে এই ঘটনার পর সকলে প্রার্থণা শুরু করেছেন যাতে জগন্নাথদেবের কৃপায় সব ঠিক থাকে৷

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *