UGC-র গাইডলাইন ভেঙে লকডাউনের মধ্যেই পরীক্ষা, সরকারের সিদ্ধান্তে হতবাক মেডিক্যালের পড়ুয়ারা

খবর শিক্ষা-কর্ম

করোনা মোকাবিলায় ফের বেড়েছে লকডাউন। গোটা জুলাই মাস জুড়ে লকডাউন ঘোষণা করেছেন খোদ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এই অবস্থায় বাতিল করা হয়েছে উচ্চমাধ্যমিক সহ কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়ের যাবতীয় পরীক্ষা।

কিন্তু আচমকাই লকডাউনের মধ্যেই মেডিক্যালের পড়ুয়াদের পরীক্ষার তারিখ ফেলা হয়েছে। রাজ্য সরকারের নির্দেশিকায় বলা হয়েছে আগামী ১৬ জুলাই মেডিক্যালের পরীক্ষা। যার জেরে কার্যত মাথায় হাত পড়ুয়াদের। ইউজিসির নির্দেশিকা থাকা সত্বেও কীভাবে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে লকডাউনের মধ্যে পরীক্ষা ফেলা হল তা নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে। পাশাপাশি পড়ুয়াদের অভিযোগ, বিষয়টি নিয়ে মেডিক্যাল কলেজের অধ্যক্ষ বা ফ্যাকাল্টির অধ্যাপক, ডিনরা মুখে কুলুপ এঁটেছেন। পড়ুয়াদের দাবি, সংশ্লিষ্ট আধিকারিকরা সাফ জানিয়েছেন, সরকারি নির্দেশের উপর কিছুই করা যাবে না। প্রশ্ন উঠছে, লকডাউনের মধ্যে কীভাবে পরীক্ষার রুটিন ফেলা হল? যেখানে ইউজিসি গাইডলাইনে স্পষ্ট জানানো হয়েছে, লকডাউনের মধ্যে কোনও রকম পরীক্ষা ফেলা হবে না, সেখানে ইউজিসি গাইডলাইন লঙ্ঘন করা হল কীভাবে? যদিও এর সদুত্তর মেলেনি।

ইতিমধ্যেই সরকারের সিদ্ধান্তের তীব্র বিরোধিতায় সরব হয়েছে মেডিক্যালের পড়ুয়ারা। তাঁদের দাবি, অনেক ছাত্রছাত্রী অন্য জেলায় থাকে, তাঁরা কলেজের কাছে মেস ভাড়া নিয়ে থাকে। কিন্তু লকডাউন শুরু হতেই সকলেই প্রায় মেস থেকে বাড়ি চলে গিয়েছে। এখন তাঁরা ফিরে আসলেও মেস পাওয়া যাবে না। সুতরাং তাঁরা পরীক্ষায় বসবে কী করে? তেমনই লকডাউনের জেরে গাড়ি না থাকার জেরেও সমস্যায় পড়েছে পড়ুয়ারা। কিন্তু সেক্ষেত্রে সরকার কার্যত উদাসীন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *