বীরভূমের কঙ্কালীতলায় দেবী দশভুজার আহ্বান

উৎসব-সংস্কৃতি খবর

সুরজিৎ আঁকুড়ে: পশ্চিমবঙ্গের বীরভূম জেলার বোলপুর-লাভপুর রোডের পাশে কঙ্কালীতলা মন্দির নামক এই শক্তিপীঠ অবস্থিত। কথিত আছে, দক্ষযজ্ঞের পর এখানে দেবী পার্বতীর কাঁখ পড়েছিল। এখানে দেবীর নাম দেবগর্ভা। ৫১ পীঠের সর্বশেষ পীঠ বীরভূমের কঙ্কালীতলা। কঙ্কাকালী মায়ের মূর্তি কোন শিলা পাথর বা ধাতু দিয়ে গড়া নয় এখানে মায়ের কাগজে বাঁধানো ছবিকে আরাধনা করা হয়। মন্দিরের প্রধান পুরোহিত মহাদেববাবু জানান, মা কঙ্কাকালীকেই সকল দেবী রূপে পুজো করা হয়। মহাদেববাবুর কথায় , প্রায় ১০০ বছর আগে থেকে মায়ের এই ছবিতেই সাজিয়ে পুজো করা হয় সমস্ত দেবীরূপে। তিনি আরও বলেন, এই মা কঙ্কালী দেবী দুর্গা রূপে পুজিত হয়। ওই এলাকায় কোনো মুর্তি পুজো হয়না কারণ মা স্বয়ং সেখানে বর্তমান। পুরাণ অনুযায়ী, সতী রূপে দেবী দুর্গার একান্ন খণ্ড হয়েছিল। সেই একান্ন খণ্ডকে একান্ন কুমারীর মধ্যে দিয়ে পুজো করার রীতি কঙ্কালীতলায় আজও রয়ে গেছে। চুয়াল্লিশ বছর আগে বিপ্রটিকুড়ি গ্রামের বাসিন্দা মুক্তানন্দ মহারাজ ওরফে বুদ্ধদেব চট্টোপাধ্যায় শুরু করেন একান্ন কুমারীর পুজো।
তবে করোনা আবহে এবারে পুজোতে জনসমাগম কমতে পারে বলে মনে করছেন মন্দিরের পুরোহিতরা।