করোনা শুধু ‘মৃত্যু’ নয়, ডিভোর্সেরও কারণ!

লাইফস্টাইল

চিনে গত কয়েক দিনে বিবাহবিচ্ছেদ দ্রুত হারে বেড়েছে। তা-ও কিনা করোনার কারণে। বাজে খবর নয়, পরিসংখ্যান সে দিকেই ইঙ্গিত করছে। এই সম্পর্ক ভাঙার কারণ অবশ্য করোনা সংক্রমণের ভয় নয়। বরং করোনায় কোয়ারেনটাইনেই গোল বেধেছে!

কে যেন বলেছিলেন, ‘চোখের বাহির করে মনের বাহির!’ এই প্রবাদ ডাহা মিথ্যে প্রমাণ করে, উলটে স্বামী-স্ত্রীর পক্ষকালের ২৪x৭ ঘণ্টার ‘নৈকট্য’ (পড়ুন সেলফ-আইসোলেশন)-ই হয়ে দাঁড়িয়েছে দাম্পত্যে চরম অশান্তির কারণ! যুগলের দিনান্তে দেখা আর সর্বক্ষণ পাশাপাশি থাকা যে এক ব্যাপার নয়, হাড়েমজ্জায় নাকি টের পাচ্ছেন চিনা দম্পতিরা।

সেই অশান্তির জল ঘরের চার চৌহদ্দিতে আটকে না-থেকে আদালত অবধি গড়িয়েছে। চিনের ম্যারেজ রেজিস্ট্রি অফিসের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, বিবাহবিচ্ছেদ চেয়ে ২৪ ফেব্রুয়ারি থেকে ১৫ মার্চের মধ্যে শুধু একটি রেজিস্ট্রি অফিসেই ৩০০টি আবেদন জমা পড়েছে। শি’আনের আর একটি রেজিস্ট্রি অফিসে একদিনে ১৪টি ডিভোর্সের মামলা ফাইল হয়েছে।

আবার চিনের আর এক শহরের রেজিস্ট্রে অফিসের তরফে জানানো হয়েছে, প্রতিদিন বিবাহবিচ্ছেদ চেয়ে গুচ্ছগুচ্ছ করে আবেদন জমা হচ্ছিল। তাই দিনে ১০টির বেশি আবেদন জমা পড়বে না বলে নির্দেশিকা জারি করতে হয়েছে।

চিনের সিচুয়ান প্রদেশের দাঝৌয়ের এক ম্যারেজ রেজিস্ট্রি অফিসের ম্যানেজার লু শিজনের কথায়, যুগলে দিনের অনেকটা সময় একসঙ্গে কাটানোয় খুঁটিনাটি নানা কারণে উত্তপ্ত বাক্যবিনিময় হচ্ছে। যার জেরে সম্পর্ক এমনই তিক্ততায় পৌঁছচ্ছে, সম্পর্ক ভেঙে যুগলে বেরিয়ে যেতে চাইছেন। চিনার উহান থেকে গোটা বিশ্বে ছড়িয়ে পড়ে করোনাভাইরাস। শুধু চিনেই করোনায় মারা গিয়েছেন ৩ হাজারেরও বেশি মানুষ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *