Wednesday , 26 , Jan-2022

inner-page-banner

লিফটের ভিতরেই আটকে থাকলেন রোগী! এক ঘণ্টা, দু’ঘণ্টা বা এক-দু’দিন নয়, টানা চার দিন বন্ধ লিফটের ভিতরে আটকে থাকলেন ষাটোর্ধ্ব এক মহিলা। সঙ্গে শুধু ৩০০ মিলিগ্রামের একটি জলের বোতলই ছিল তাঁর চার দিন ধরে বেঁচে থাকার একমাত্র রসদ। লিফটেই চিৎকার করতে করতে হাঁপিয়ে যাওয়ার পরে আশা ছেড়ে দিয়েছিলেন বাঁচার। ঘুটঘুটে অন্ধকার লিফটে পড়ে ছিলেন একধারে। সেখানে শৌচকর্মও সারতে হয়েছে। তবুও বেঁচে থাকার শেষ আশাটুকু নিয়ে লড়ছিলেন।

এমন ভয়াবহ ছবি কোনও জেলা হাসপাতালে নয়। একেবারে খাস কলকাতায় এনআরএস মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ঘটনা।
আউটডোরে ডাক্তার দেখাতে এসে লিফটে আটকে পড়েছিলেন ৬০ বছর বয়সি আনোয়ারা বিবি। 
গত সোমবার সকালে। চার দিন চালিয়েছেন কোনওক্রমে বেঁচে থাকার অসম লড়াই। সোমবার সকাল থেকে শুক্রবার সকাল পর্যন্ত ওই ছোট্ট লিফটেই কোনও মতে বেঁচে থাকা। তাঁকে উদ্ধার করা হয় শুক্রবার দুপুরে। বাদুড়িয়ার চণ্ডীপুর গ্রামের বাড়িতে বসে এদিন ওই চার দিনের অভিজ্ঞতার কথা বলছিলেন আনোয়ারা বিবি। তাঁর দাবী, ‘‘আমি তো বুঝিনি লিফট খারাপ হয়ে গেছে। কত চিৎকার করেছি, কেউ শোনে না। একটা জলের বোতল ছিল, একটা চিঁড়ের প্যাকেট ছিল। অল্প অল্প করে জল খাচ্ছিলাম রোজ। 
ভাবছি, কেউ না কেউ এসে দরজা খুলবে। কেউ আসেনি। কীভাবে বাঁচলাম জানি না।’’ 
 খাস কলকাতার সরকারি হাসপাতালের লিফটে চার দিন ধরে আটকে রয়েছেন এক রোগী! 
কেউ জানতে পারলেন না? স্বাভাবিকভাবেই একগুচ্ছ প্রশ্ন উঠেছে। হাসপাতালের সুপারের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলেও কোনও প্রতিক্রিয়া মেলেনি। 
হাসপাতালের এক আধিকারিকের দাবি, বিষয়টি বিস্তারিতভাবে কিছু জানা নেই।
আনোয়ার বিবির ছেলে ইসরাফি মণ্ডলের কথায়, ‘‘মায়ের কাছ থেকে যেটুকু জানলাম, মা হাসপাতালে গিয়ে আউটডোরে টিকিট করেন। তিন তলায় ডাক্তারবাবুকে দেখাতে যান। 
পায়ে ব্যথা বলে সিঁড়ি দিয়ে উঠতে পারছিলেন না। ওখানে একটা বড় লিফট ছিল, আরেকটা ছোট লিফটও ছিল। মা ছোট লিফটে ওঠে। কিন্তু তিন তলায় যাওয়ার আগে দোতলাতেই লিফট খারাপ হয়ে যায়। ভিতরেও তো অন্ধকার। 
অনেক ডাকাডাকি করেও কাউকে পায়নি।’’ এই ঘটনা ফের একবার রাজ্যের স্বাস্থ্য ব্যবস্থার বেহাল দশা চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিল।

You can share this post!

মমতাতে ভরসা নেই, সভা শেষে পদত্যাগ বনগাঁর দাপুটে তৃণমূল নেতার

চীনে মসজিদ ভেঙে তৈরি হচ্ছে পাবলিক টয়লেট, বার

author

Sunday Times Kolkata

By Admin

Leave Comments