Saturday , 18 , Sep-2021

Top Stories
  1. "মেয়ের স্কুলে অ্যাডমিশন হচ্ছিল না", তাই তৃণমূলে যোগ দিলেন 'অপদার্থ' বাবুল
  2. পাঞ্জাবে ভেঙে গেল কংগ্রেস সরকার, গোষ্ঠী দ্বন্দ্বে পদত্যাগ করলেন মুখ্যমন্ত্রী অমরিন্দর সিং
  3. আগরতলা ঠান্ডা করতে, বিজেপিকে শেষ করতে পশ্চিমবঙ্গ থেকে ছেলে পাঠানো হবে, বললেন তৃণমূল নেত্রী সায়নী ঘোষ
  4. রাজ্যের আপত্তি, পশ্চিমবঙ্গে লাগু হল না পেট্রোল-ডিজেলে GST, দাম আরও বাড়বে
  5. বদলে গেল দেশের শ্রম আইন, এবার থেকে 12 ঘণ্টা কাজ
  6. ভেঙে গেল বাম-কংগ্রেস জোট, ঘোষণা ইয়েচুরির
  7. ভোটের আগে মানিক সরকার-বিপ্লব দেব-রামমাধব একান্ত বৈঠক, চরম অস্বস্তিতে সিপিএম
  8. মোদীকে শেষ করে দেব, প্রধানমন্ত্রীর আমেরিকা সফর নিয়ে হুমকি জঙ্গি গোষ্ঠীর
  9. তৃণমূলকেই ভোট দিন, আবেদন খোদ সিপিএমের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীর
  10. ঈশানের বাবা যশ, অবশেষে কাটল সব ধোয়াশা, স্বীকার করলেন নুসরত
inner-page-banner

কথা দিয়েছিলেন ১৯ নভেম্বর সব বলবেন। সবাই অপেক্ষা করেছিলেন তাহলে বোধহয় এবার নতুন কিছু শোনা যাবে। ভিড় হয়েছিল রামনগরের সভায়। কিন্তু তার মধ্যেই অন্য এক সমীকরণ। যার জন্য নতুন কিছু শুনতে পেলেন না কেউ। আসলে শুভেন্দুও সময় দিয়েছিলেন দলকে যদি সম্পর্ক মেরামত করতে তারা এগিয়ে আসেন।
সূত্রের খবর, দল সময় পেয়ে যোগাযোগ করল। দুই সাংসদ তাঁর সঙ্গে যোগাযোগ করেছিলেন। সৌগত রায় এবং সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়ের উপর দায়িত্ব পড়ে শুভেন্দুকে ঘরে ফিরিয়ে আনার। তিনি যে দলের সর্বোচ্চ নীতি নির্ধারক কমিটিতে আছেন তাও সংবাদমাধ্যমের কাছে সাংসদ সুখেন্দুশেখর রায় বলে দিয়ে বার্তা দিয়ে দেন শুভেন্দুকে। ভাইফোঁটার সন্ধ্যায় গোপনে বৈঠক হয় শুভেন্দুর সঙ্গে দায়িত্বপ্রাপ্ত সাংসদের। উত্তপ্ত বাক্য বিনিময় না হলেও যুক্তির পাল্টা যুক্তি তুলে ধরেন সকলেই। অবশেষে আসে মীমাংসার রাস্তা। শুভেন্দুকে বলা হয় রামনগরের সভা থেকে তেমন বার্তাই দিতে। তারপর বাকিটা তাঁরা দেখে নেবেন।
কথা অনুযায়ী, রামনগরের সভা থেকে তিনি বলেন, ‘‌মুখ্যমন্ত্রী আমাকে তাড়াননি, আর আমিও দল ছাড়িনি।’‌ সাংসদদের দেওয়া কথা তিনি রাখলেন বটে। কিন্তু মানুষকে দেওয়া কথা তিনি রাখলেন না। রামনগরের মঞ্চ থেকে সব বলার কথা ছিল তাঁর। অর্থাৎ রাজনৈতিক ভবিষ্যতের কথা। সেই কথা তিনি রাখলেন না। বিজেপিও ওৎ পেতে বসে ছিল শুভেন্দুকে বরণ করার জন্য। কিন্তু তাও হল না। তবে যদি দেখা যায় সাংসদরা তাঁর দাবি মতো কাজ করতে পারলেন না তাহলে আবার পুরনো রাস্তায় তিনি হাঁটবেন। বরং শুভেন্দুর বলেছেন, ‘‌এই মঞ্চে আমি রাজনৈতিক কথা বলব বলে মনে করেছিলেন অনেকে। তাঁদের ছড়ানো খবরের দায়িত্ব তাদেরই নিতে হবে। আমি নেব না।’
তাঁরই কথা ছিল, আমি প্যারাশুটে উঠিনি, লিফটে নামিনি। বরং সিঁড়ি ভেঙে ভেঙে উপরে উঠেছি। তিনিই বলেছিলেন, মানুষ পুরনো ইতিহাস ভুলে যান। একদিন তাঁদেরকেই হাতে ধরে এখানে নিয়ে এসেছিলাম। আর তিনিই বললেন, একদিন-দুদিনের লোক নই তো, বসন্তের কোকিল নই আমি। সবার সঙ্গে আমার আত্মিক পরিচয় রয়েছে। এই মন্তব্য করার পরই তৃণমূল সাংসদ সৌগত রায় বলেন, ‘‌শুভেন্দু অধিকারী যে কথা বলেছেন তা শুনে আমি খুশি। ওঁর সঙ্গে আমার যখন কথা হয়, উনি দল ছাড়বেন এমন কোনও কথা বলেননি। উনে দলে আছেন, দলে থাকলে আমরা সবাই খুশি হব।’‌

You can share this post!

মমতা একাই দুশো, বিপুল জয়ের হ্যাট্রিক করল তৃণমূল

এরা কি চিকিৎসক? মানুষকে ভয় দেখানোই কাজ?

author

Sunday Times Kolkata

By Admin

0 Comments

Leave Comments