Tuesday , 25 , Jan-2022

inner-page-banner

স্ক্রিপ্ট একই। সময়ের সঙ্গে শুধু পাল্টাচ্ছে সেই স্ক্রিপ্টের অভিনেতারা। অবাক হচ্ছেন? না, অবাক হওয়ার কিছু নেই, আদতে এটাই প্রশান্ত কিশোর বা পিকে। যাকে বিভিন্ন সময়ে মোটা অঙ্কের ট্কা দিয়ে নিজেদের ভোট বৈতরণী পার করাতে নিয়োগ করেছেন বিভিন্ন রাজ্যের রাজনীতিবিদরা। শুধু রাজ্যের ভোট কেন লোকসভা ভোটেও প্রশান্ত কিশোরকে দেখা গিয়েছে কখনও মোদী কখনও আবার রাহুল গান্ধীর পরামর্শদাতা হিসেবে। ক্রমে তার গাল ভরা নাম হয়েছে "ভোট স্ট্র্যাটেজিস্ট" হিসেবে। সে যাই হোক তিনি ব্যবসা করে খাচ্ছেন। আমাদের অসুবিধা হওয়ার কথা ছিল না, যদি না তাঁর স্ক্রিপ্ট জলের মতো সকলের সামনে প্রকাশ পেয়ে যেত। ২০১৯ এর বিধানসভা ভোটে অন্ধ্রপ্রদেশে জগমোহন রেড্ডির নির্বাচনী স্ট্র্যাটেজিস্ট ছিলেন প্রশান্ত কিশোর। সেবারও চন্দ্রবাবু নাইডুর বিরুদ্ধে নির্বাচনী প্রচারে গিয়ে পা ভাঙলেন রেড্ডি। শুয়ে থাকলেন হাসপাতালে। ছবি উঠল। সহানুভূতির বন্যায় ভেসে গেলেন রেড্ডি। কাকতালীয় ভাবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পায়েও আঘাত লাগল ঠিক একই ভাবে। তিনি আবার একধাপ এগিয়ে হুইল চেয়ারে বসে নামলেন ভোট প্রচারে৷ পাটিগণিতের অঙ্কে মিলে যাচ্ছে দুয়ে দুয়ে চার। সুতরাং প্রশান্ত কিশোরের অস্ত্র সবখানেই এক। প্রয়োগের ক্ষেত্রও এক। শুধু টাকার বিনিময়ে তিনি রাজনীতিবিদদের হাতে তুলে দেন সেই অস্ত্র। কিন্তু এভাবে কী আর ব্যবসা বাড়ে? অচিরেই মুখ থুবরে পড়বেন না তো? কারণ মানুষ বোকা নয়। ইন্টারনেটের যুগে মানুষ সব খবর রাখে আর মনে রাখবেন ইভিএমে বোতামটা কিন্তু সেই মানুষ গুলোই টিপবে। ১০ বছরের কাজের খতিয়ানের বদলে যদি ভাঙা পায়ের সহানুভূতি নিয়ে ভোট চাইতে যান তবে ফল অন্যদিকে মোড় নিলেও নিতে পারে। সাধু সাবধান।

You can share this post!

খাস কলকাতায় আক্রান্ত তৃণমূল কাউন্সিলর, আসরে স্বয়ং মমতা, ক্রমশ হাতের বাইরে যাচ্ছে পরিস্থিতি

রাম নামে মরিয়া রাজ্যের মন্ত্রী, শাহ আসার আগে ঘাসফুল শিবিরে কি ফের ভাঙন

author

Sunday Times Kolkata

By Admin

0 Comments

Leave Comments