Wednesday , 26 , Jan-2022

inner-page-banner

গত সপ্তাহ থেকে আচমকা দৈনিক করোনা সংক্রামিত অনেকটাই বেড়ে গিয়েছে রাজ্যে। এর মধ্যে কলকাতায় সংক্রমণের হার সব থেকে বেশি। এই পরিস্থিতিতে চিকিৎসা ব্যবস্থা কতটা মসৃণ ভাবে চালানো যায়, তা নিয়ে চিন্তিত স্বাস্থ্য দফতর। তবে এরই মধ্যে আশার কথা, আক্রান্ত লাফিয়ে বাড়লেও ৯৮ শতাংশ কোভিড বেড ফাঁকা।সোমবার পর্যন্ত রাজ্যে সরকারি-বেসরকারি হাসপাতাল মিলিয়ে কোভিড বেডের সংখ্যা ২৩ হাজার ৯৪৭। এর মধ্যে রোগী ভরতি রয়েছেন শুধুমাত্র ২.৬৩ শতাংশ।গত ২৭ ডিসেম্বর রাজ্যে দৈনিক আক্রান্ত ছিল মাত্র ৪৩৯। পর দিন থেকেই ধাপে ধাপে বেড়েছে নতুন করে আক্রান্তের সংখ্যা। ২৮ ডিসেম্বর ৭৫২, ২৯ ডিসেম্বর ১ হাজার ৮৯, ৩০ ডিসেম্বর ২ হাজার ১২৮, ৩১ ডিসেম্বর ৩ হাজার ৪৫১, ১ জানুয়ারি ৪ হাজার ৪১২, ২ ডিসেম্বর ৬ হাজার ১৫৩ এবং ৩ জানুয়ারি ৬ হাজার ৭৮ জন। এই পরিসংখ্যানেই স্পষ্ট, কী ভাবে লাফিয়ে বাড়ছে সংক্রমণ। তাই বলে আতঙ্ক?একাংশ অবশ্য তেমনটাই বলছে। কিন্তু এর উলটো দিকে চিকিৎসা পরিষেবার বাস্তব দিকটা আড়ালেই রেখে দিচ্ছে তারা। বলা হচ্ছে, হু হু করে বেড়ে যাচ্ছে সক্রিয় রোগী। সোমবার পর্যন্ত রাজ্যে সক্রিয় রোগী ২০ হাজারের কিছু বেশি। কিন্তু ছ’দিন আগে গত ২৯ ডিসেম্বর এই সংখ্যাটাই ছিল আট হাজারের কাছাকাছি। তা হলে এই ক’দিনের মধ্যে যে প্রায় ১২ হাজার রোগী বেড়ে গেল, কিন্তু এখন প্রশ্ন হল তারা গেলেন কোথায়?বর্তমানে সক্রিয় রোগীর মধ্যে হোম আইসোলেশনে রয়েছেন ১৮ হাজার ৬১২ আক্রান্ত। তাঁরা সুস্থও হয়ে উঠছেন। মৃতের সংখ্যা যে কারণে তুলনামূলক ভাবে অনেকটা কম। এর আগে দৈনিক সংক্রমণ পাঁচশোর নীচে থাকার অবস্থায় রাজ্যে দৈনিক মৃত্যু যা ছিল, এখন এক দিনে আক্রান্ত ছ’হাজার টপকালেও মৃতের সংখ্যা কিন্তু আগের মতোই। এর কারণ, ভাইরাসের মৃদু উপসর্গ, ভ্যাকসিনের কার্যকারিতা ইত্যাদি হতেই পারে। কিন্তু পরিস্থিতি মোটেই আতঙ্ককে মান্যতা দেওয়ার মতো নয়।

You can share this post!

স্পষ্ট গোপনাঙ্গের ট্যাটু, বিকিনি পড়ে ছবি পোস্ট করলেন নুসরত

মা উড়ালপুলের ছবি দেওয়া যোগী সরকারের ফেক বিজ্ঞাপন ছাপিয়ে ক্ষমা চাইল ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস, লজ্জা

author

Sunday Times Kolkata

By Admin

0 Comments

Leave Comments