Wednesday , 21 , Apr-2021

Top Stories
  1. কবি শঙ্খ ঘোষের প্রয়াণে শোকস্তব্ধ বাংলা
  2. লকডাউন করবেন না, রাজ্য সরকারকে কড়া বার্তা মোদীর
  3. বাংলাদেশ থেকে রেমডেসিভির আনতে মোদীর কাছে অনুমতি চাইলো মুখ্যমন্ত্রী
  4. একের পর এক সংক্রমিত কর্মীরা, বন্ধ হচ্ছে লোকাল ট্রেন
  5. শীতলকুচির ডেড বডিগুলো নিয়ে র‍্যালি করব, এসপি, আইসি, পুলিশকে ফাঁসাতে হবে, ফের মমতার কলরেকর্ড ফাঁস
  6. তৃণমূল পেতে পারে ১৮৮ আসন, নতুন সমীক্ষায় স্পষ্ট জনমত
  7. ভোটে প্রচার করতে পারবেন না মুখ্যমন্ত্রী, ব্যান করল নির্বাচন কমিশন
  8. শীতলকুচিতে মাদ্রাসা বুথে বেধরক মারা হয় কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানদের, মুখ্যমন্ত্রীর উস্কানিতেই পরিকল্পিত হামলা, প্রকাশ্যে এল ছবি
  9. মমতার উস্কানিতেই মৃত্যু হচ্ছে, ঝড়ছে রক্ত, অবিলম্বে বয়কট করুন মুখ্যমন্ত্রীকে
  10. মাদ্রাসা বুথে গুলি চালাল কেন্দ্রীয় বাহিনী, মৃত চার
inner-page-banner

সুরজিৎ আঁকুড়ে:- বাংলার সব বিধানসভা কেন্দ্রের প্রার্থী এবার নিজে হাতে বাছাই করবেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। আর সেই প্রার্থিতালিকা চূড়ান্ত হবে বাংলার দায়িত্বপ্রাপ্ত পাঁচ নেতার রিপোর্টের ভিত্তিতে। দলের অন্দরে উপদলীয় রাজনীতি নিয়ন্ত্রণে আনতে বিধানসভা ভোটের আগে বঙ্গ বিজেপি-র রাশ নিজেদের হাতে নিয়েছিলেন কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব। সে বিষয়ে তাঁরা যে কতটা গুরুত্ব দিচ্ছেন, তা প্রার্থী বাছাইয়ের এই সিদ্ধান্তেই স্পষ্ট। নীলবাড়ি দখলের লক্ষ্যে রাজ্য বিজেপি-র গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব যাতে কোনও রকমের বাধা হয়ে না দাঁড়ায়, তা নিশ্চিত করতেই এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বিজেপির প্রাক্তন সর্বভারতীয় সভাপতি। আগামী ৮ এবং ৯ ডিসেম্বর রাজ্যে থাকবেন বিজেপি সভাপতি জগৎপ্রকাশ নড্ডা। সেই সময়েই রাজ্য থেকে জেলা স্তরে সম্ভাব্য সাংগঠনিক রদবদল নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হতে পারে ।বাংলায় বিধানসভা নির্বাচনের আগে রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ এবং কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি মুকুল রায়ের দুই বিবদমান গোষ্ঠীর কাজকর্মে অনেকদিন ধরেই বিরক্ত কেন্দ্রীয় নেতারা। একাধিকবার দিল্লিতে ডেকে দুই শিবিরকেই সতর্ক করা হলেও সব সমস্যা পুরোপুরি মেটেনি। রাজ্যের ৪২টি লোকসভা কেন্দ্রকে আলাদা আলাদা ‘সাংগঠনিক জেলা’ হিসেবে বিচার করে বঙ্গ বিজেপি। সেই অনুযায়ী মোট পাঁচটি ভাগে ভাঙা হয়েছে গোটা রাজ্যকে। প্রসঙ্গত, তৃণমূলে বরাবরই নিজের ‘আস্থাভাজন’ নেতাদের সঙ্গে পরামর্শক্রমে সব কেন্দ্রের প্রার্থী বাছাইয়ের দায়িত্ব নিজের হাতে রাখেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এ বার বিজেপির প্রার্থী বাছাইও একই হাতে থাকছে। এই রাজ্যের দায়িত্বপ্রাপ্ত বিজেপির এক কেন্দ্রীয় নেতা জানিয়েছেন, বিজেপি এ বার ক্ষমতায় আসতে পারে ধরে নিয়ে অনেকেই প্রার্থী হতে চাইছেন। সব আসনেই আগ্রহীদের তালিকা বড়। এ ক্ষেত্রে সাংগঠনিক শক্তি যেমন দেখা হবে, তেমনই গুরুত্ব দেওয়া হবে আসন অনুযায়ী স্থানীয় ইস্যু, আবেগ এবং রাজনৈতিক সমীকরণকে। সংশ্লিষ্ট প্রার্থী বিজেপিতে পুরনো না নতুন, তা বিবেচনা না করে তাঁর জয়ের সম্ভাবনা দেখেই প্রার্থী বাছাই হবে। এবং সে বিষয়ে স্থানীয় নেতাদের সুপারিশও ভাল ভাবে খতিয়ে দেখা হবে। 
ওই কেন্দ্রীয় নেতা আরও জানান, অমিতকে রিপোর্ট দেওয়ার আগে শুধু রাজ্য বা জেলা নেতাদের কথার উপরে ভরসা না করে নীচু স্তরের কর্মীদের সঙ্গেও কথা বলা হয়েছে। কোন বুথে কতটা শক্তি, তা নিয়ে রাজ্য নেতৃত্বের দেওয়া পরিসংখ্যানের উপরেই শুধু নির্ভর না করে ‘গ্রাউন্ড রিয়েলিটি’ বোঝার চেষ্টা করা হয়েছে। যাতে ভোটের আগে ‘খামতি’ দূর করা যায়।

You can share this post!

কমলো একাদশ শ্রেণির সিলেবাস, সংসদের বিজ্ঞপ্তিতেও কাটল না ধোঁয়াশা

মহিলাদের আপত্তিকর মেসেজ, রাস্তায় ফেলে তৃণমূল নেতাকে জুতাপেটা মানুষের

author

Sunday Times Kolkata

By Admin

0 Comments

Leave Comments