‘রেডজোন’ নিয়ে কেন্দ্র বনাম রাজ্য সংঘাত চরমে

রাজনীতি-সামাজিক

দীপক মুখার্জী: বাংলায় রেড জোন নিয়েও শুরু হয়েছে কেন্দ্র ও রাজ্যের সংহাত। রাজ্য থেকে বলা হয়েছে এখনে রেড জোন চারটি জেলা, কিন্তু কেন্দ্র থকে জানানো হয় চার নয়, রাজ্যে রেড জোনের আওতায় রয়েছে ১০টি জেলা।

কেন্দ্রের তরফ থেকে ইতোমধ্যে রাজ্যসকারকে এ ব্যাপারে একটি নয়া তালিকাও পাঠানো হয়েছে। কিন্তু রাজ্য এই তালিকা মানতে নারাজ। এই নিয়ে কেন্দ্র-রাজ্য সংঘাত অব্যাহত রয়েছে। আচমকা কেন এই তালিকা বদল এই প্রশ্নে কেন্দ্রকে ফের চিঠি দিলেন রাজ্য স্বাস্থ্যবিভাগের প্রিন্সিপ্যাল সেক্রেটারী বিবেক কুমার।

প্রসঙ্গত, রাজ্যে করোনা পরিস্থিতি পরিদর্শন ঘিরে প্রথম থেকেই কেন্দ্রের সঙ্গে রাজ্যের একটা চাপা বাদানুবাদ চলে। এবার সংঘাত জোর চরমে, করোনায় রেড জোন চিহ্নিত করে কেন্দ্রের পাঠানো নয়া তালিকা নিয়ে। এই তালিকায় মূলত রাজ্যের ১০ টি জেলাকে রেডজোনের আওতায় দেখিয়েছে কেন্দ্র। কিন্তু রাজ্যের দাবি, প্রথমে কেন্দ্র রাজ্যের চারটি জেলা-কলকাতা, হাওড়া, পূর্ব মেদিনীপুর ও উত্তর ২৪ পরগনাকেই রেড জোনের আওতায় দেখিয়েছিল। রেড জোন অর্থাৎ, কত দিনে সংক্রামিতের সংখ্যা দ্বিগুণ হচ্ছে, কত জন সংক্রমিতের সংস্পর্শে আসছেন, কোথায় সংক্রমণের হার সবচেয়ে বেশি তার ভিত্তিতে একটি রিপোর্ট তৈরি করা হয়। তাতে দেখা যায়, কলকাতাতেই সংক্রমণের হার প্রায় ৮০ শতাংশ। এই চারটি জেলার ওপর অতিরিক্ত নজরদারির পরামর্শ দিয়েছিল কেন্দ্র। সেই মোতাবেক রাজ্য প্রশাসনও তৎপর ছিল। রেড জোনগুলোতে অতিরিক্ত নজরদারি এবং কঠোরভাবে পালন করা হচ্ছে লকডাউন। করোনা পরীক্ষার হারও বাড়ানো হয়েছে।

এরইমধ্যে চলে কেন্দ্রীয় দলের পরিদর্শন ও তথ্য সংগ্রহের কাজ। বৃহস্পতিবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যসচিব প্রীতি সুদান প্রতিটি রাজ্যকে একটি চিঠি পাঠিয়েছেন। সঙ্গে বিভিন্ন রাজ্যের সংশোধিত রেড, অরেঞ্জ এবং গ্রিন জোনের তালিকাও। যা অত্যন্ত আশঙ্কার ইঙ্গিতও বহন করে! কেন্দ্রের ঐ তালিকায় এই রাজ্যের ১০টি জেলা্য় রেড জোন, ৫টি রয়েছে অরেঞ্জ এবং ৮টি গ্রিন জোন রয়েছে।

কেন্দ্রের নয়া তালিকায় আগের চারটি জেলার সঙ্গে দক্ষিণ ২৪ পরগনা, পশ্চিম মেদিনীপুর, দার্জিলিং, জলপাইগুড়ি, কালিম্পং, মালদা যোগ করা হয়েছে।
রাজ্য মনে করছে, কেন্দ্রীয় পর্যবেক্ষক দলের যে শাখা উত্তরবঙ্গ পরিদর্শনে গিয়েছিল, তাদেরই রিপোর্টের ভিত্তিতেই এই তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে।তাদের এই রিপোর্টে গড়মিল রয়েছে বিধায় ইতিমধ্যেই কেন্দ্রকে চিঠি পাঠিয়েছে রাজ্য। এই তালিকা ঘিরে ফের রাজ্য-কেন্দ্র সংঘাত চরমে উঠবে বলে মনে করছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা। রাজ্যের মুখ্যসচিব রাজীব সিনহা বলেছেন, “কেন্দ্র আগে অন্য তালিকা দিয়েছিল। সেই মোতাবেক কাজ হচ্ছে, এখন আবার পাল্টালো তালিকা।এ নিয়ে বিভ্রান্তি তৈরি হওয়ায় রাজ্যসরকার এর বিরোধিতা করে কেন্দ্রকে চিঠি পাঠিয়েছে”।

1 thought on “‘রেডজোন’ নিয়ে কেন্দ্র বনাম রাজ্য সংঘাত চরমে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *